পরিবহন খাতের সংকট কাটছে না

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে যুক্ত হওয়া অনেকগুলো কার্যকর ফিচারের একটি মেমোরি শেয়ার করা। হঠাত্ আজ সকালে লগ ইন করে দেখি, গত বছরের ঠিক এই দিনে বণিক বার্তার মতামত পাতায় একটি লেখা লিখতে বাধ্য হয়েছিলাম ‘গাড়িভর্তি রাজপথে গণপরিবহন কোথায়?’ শিরোনামে। বছর পেরিয়ে গেছে। এর পর নির্মাণ করা হয়েছে ফ্লাইওভার, প্রশস্ততা বেড়েছে অনেক রাস্তার, বিকল্প ব্যবস্থা নিয়ে চিন্তা করা হয়েছে ঢের, সেমিনার-সিম্পোজিয়ামে বক্তব্য দিয়ে মুখে ফেনা তুলে ফেলেছেন বিশেষজ্ঞরা। তার পরও বাঙালির ভাগ্য বদলায় সাধ্য কার? বছর পেরিয়েও ইতিহাসের পাতায় মসজিদের নগরী কিংবা বিদেশী পর্যটকদের চোখে রিকশার নগরী হিসেবে চিরপরিচিত রাজধানী ঢাকার…

Read More

চা শিল্পে অচলাবস্থা কাটছে না

তৈরি পোশাক শিল্প ও চিংড়ি রফতানির পাশাপাশি বাংলাদেশের বৈদেশিক বাণিজ্যে গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে ছিল চা শিল্প। কিন্তু নানা জটিলতায় বিগত বছরগুলোয় যেন অধোগতিতে পড়েছে এ শিল্প। চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত নিলামগুলোয় সম্প্রতি বাংলাদেশে উৎপাদিত চা বিক্রি আশঙ্কাজনক হারে কমতে দেখা যায়। স্থানীয় উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি আমদানি আগের তুলনায় বেড়ে যাওয়ায় অবিক্রীত চায়ের মজুদ অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে বেশি হয়েছে। নানা জটিলতায় শ্রমিক অসন্তোষ বৃদ্ধির পাশাপাশি এ সংবাদে দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে চা বাগান মালিকদের। বাংলাদেশের বাগানগুলোয় উৎপাদিত চা বেচাকেনায় কিছু প্রতিষ্ঠান মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করে। তাদের দেয়া তথ্য থেকে জানা যায়, এ ধরনের একেকটি নিলামে…

Read More

স্থবিরতা আর অলসতার অন্ধকূপ

বহুদিন আগের কথা। ডাকঘর আর ডাকহরকরা ঠাঁই পেয়েছিল তারাশঙ্করের উপন্যাসে। বাদ যায়নি কিশোর কবি সুকান্তের কবিতায়ও। তিনি বরং আরেক ধাপ এগিয়ে গিয়ে লিখেছিলেন, ‘রানার! রানার!/ এ বোঝা টানার দিন কবে শেষ হবে?/ রাত শেষ হয়ে সূর্য উঠবে কবে?/ ঘরেতে অভাব; পৃথিবীটা তাই মনে হয় কালো ধোঁয়া,/ পিঠেতে টাকার বোঝা, তবু এই টাকাকে যাবে না ছোঁয়া,/ রাত নির্জন, পথে কত ভয়, তবুও রানার ছোটে,/ দস্যুর ভয়, তারো চেয়ে ভয় কখন সূর্য ওঠে।’/ কিশোর কবির আকাঙ্ক্ষাকে সত্যি না করে প্রতিদিন ঠিকই ঠিকানায় পৌঁছে যেত রানার। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বদলে গেছে সব।…

Read More

দুবাইয়ের সাফল্যের গুপ্তকথন

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের সরকার চেষ্টা করছে প্রাকৃতিক সম্পদের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে নানামুখী শিল্প ও সম্পদের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে। তারা এক্ষেত্রে দুবাই থেকে শিখতে চাইছে। বলতে গেলে তাদের জন্য এটি একটি মাইলফলক। একটি প্রজন্মেরও কম সময়ে বিনিয়োগের কেন্দ্রস্থলে চলে এসেছে দুবাই। পাশাপাশি এখানকার সাংস্কৃতিক উত্কর্ষও চোখে পড়ার মতো। যদিও ২০০৮ সালে বৈশ্বিক অর্থসংকট এ শহরের উন্নয়নকে পতনোন্মুখ করেছিল, তবে শেষ পর্যন্ত তারা আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যেতে পারে ২০২০ সালের ওয়ার্ল্ড এক্সপোর কথা, যা এখানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। দুবাই আর্থিক সংকটের মধ্যে নিজেকে শুধু টিকিয়েই রাখেনি, পাশাপাশি চরম…

Read More

পিএইচডি অর্জন প্রসঙ্গে

বিশ্বখ্যাত অর্থনীতি বিভাগগুলোর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য যদি হয় সফলভাবে গবেষণাকাজ এগিয়ে নেয়া, তবে বেশির ভাগ গ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রাম এখন ব্যর্থ, এমনটা বলা যেতেই পারে। সম্প্রতি ‘জার্নাল অব ইকোনমিক পার্সপেক্টিভস’-এ প্রকাশিত একটি গবেষণা নিবন্ধ থেকে এমনটাই ধারণা করা হচ্ছে। কিন্তু গবেষকরা শেষ পর্যন্ত কীভাবে এমন হতাশাপূর্ণ সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পেরেছেন? তারা সব মিলে প্রায় ১৪ হাজার ৩০০ মানুষের ওপর জরিপ চালিয়েছেন। এরা সবাই ১৫৪টির মতো আমেরিকান ও কানাডিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। এর বাইরে তারা গত দুই দশকে প্রকাশিত অনেক একাডেমিক পেপার নিয়ে কাজের সুযোগ পেয়েছেন। এর আলোকেই তারা বলতে…

Read More

ভুল বানান ও ভাষা বিকৃতি

কয়েক দিন আগের কথা। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বরেণ্য সাংবাদিক অ্যান্থনি মাসকারেনাসের দুটি গ্রন্থ ‘দ্য রেইপ অব বাংলাদেশ’ এবং ‘লিগ্যাসি অব ব্লাডের’ অনুবাদ নিয়ে অফিসে এলাম। বই দুটো রেখেছিলাম হাতে, যাচ্ছিলাম ‘দৈনিক বণিক বার্তার’ রিডিং সেকশনের পাশ দিয়ে। হঠাত্ খেয়াল করি মহীদুল ভাই, রেজা ভাই, খালেক ভাই, দীপা আপা প্রত্যেকেই কিছু না বলে মুচকি হাসচ্ছেন। ঘুরে দাঁড়াই, বুঝতে পারি হাসির কারণটা কী। এ বইয়ের প্রচ্ছদে সাংবাদিক মাসকারেনাসের নামের বানান লেখা হয়েছে ‘অ্যান্থনী ম্যাসকারেণহাস’ এভাবে। সেদিন বিকালে বুয়েট শিক্ষক ড. ফারসীমের ফেসবুক স্ট্যাটাস চোখে এল। স্যার লিখেছেন, ‘ভুল বানানে শ্রদ্ধাঞ্জলী (সঠিক বানান…

Read More

বিশ্ব যেভাবে গুজরাটীদের হাতে মুঠোয় !

ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদীরা যখন নতুন জয় করা অঞ্চল হিসেবে আফ্রিকার জঙ্গলের নানা স্থানে নিজেদের প্রভাববলয় বিস্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে, তখন তাদের প্রজাদের কেউ কেউ একই পতাকাতলে থেকে আরো অনেক দূর বিস্তৃত করেছে নিজেদের চিন্তার পরিসর। তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আল্লিদিনা বিশ্রাম (Allidina Visram)— যিনি কুচ তথা বর্তমান ভারতের গুজরাট অঞ্চলের বাসিন্দা ছিলেন। একেবারে কপর্দকশূন্য অবস্থায় মাত্র ১২ বছর বয়সে তিনি বর্তমান তাঞ্জানিয়ার জাঞ্জিবার অঞ্চলে পৌঁছেছিলেন। এরও প্রায় ১৪ বছর পর তিনি সেখানে একটি ছোট্ট দোকান প্রতিষ্ঠা করেন, যা ধীরে ধীরে একদিন তার সৌভাগ্যের দ্বার উন্মোচন করে দেয়। পর্যায়ক্রমে ১৯০০ সালের প্রথম দিকে কেনিয়া…

Read More

বেসামাল ঘোড়াশাল

সার কারখানা থেকে শুরু করে বিদ্যুৎকেন্দ্র কিংবা নানামুখী শিল্পকারখানা, বাস্তবে এর কোনোটিরই কমতি নেই। একই সঙ্গে নেই পরিবেশ-সম্পর্কিত কোনো সচেতনতার ধার ধারা। বিশেষ ভূমিকা না রেখে সব ধরনের ভান-ভণিতা ছেড়ে উল্লিখিত ওই এক বাক্যেই পরিচয় করিয়ে দেয়া যায় নরসিংদীর পলাশে অবস্থিত শিল্পাঞ্চল ঘোড়াশালকে। বণিক বার্তায় প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে দেখা যাচ্ছে, এ অঞ্চলে এক বিদ্যুৎকেন্দ্রটির চারপাশে মাত্র ১০ কিলোমিটার পরিসর এলাকায় গড়ে উঠেছে ৩২টি অপরিকল্পিত শিল্পকারখানা। বায়ুদূষণকারী সিমেন্ট কারখানা থেকে শুরু করে লাগামহীন পানিদূষণের জন্য দায়ী সার কারখানাও বাদ পড়েনি এ তালিকা থেকে। সেসঙ্গে গড়ে উঠেছে বিদ্যুৎকেন্দ্র, পাটকল, পোশাক ও খাদ্যপণ্য…

Read More

প্রতারণার বাটখারা

বেশ কিছুদিন হতে যায়, দৈনিক বণিক বার্তার শেষ পৃষ্ঠায় একটি ছবি ছাপা হয়েছিল ক্যাপশনসহ। সেখানে দেশের নন্দিত একটি আইসক্রিম কোম্পানির এক লিটার আইসক্রিমে ১৫০-২০০ মিলিলিটার পর্যন্ত কারচুপির কথা উল্লেখ ছিল। এটা সামান্য একটি সংবাদ। প্রতিদিন বাংলাদেশের দৈনিকগুলোর প্রথম ও শেষ পাতার পাশাপাশি দেশের খবরে নজর দিলে এমন তথ্য হরহামেশাই চোখে পড়ে। প্রতিষ্ঠিত কোম্পানিগুলোর প্যাকেট ও পাত্রে বিক্রি উপাদানে যেখানে এমন কারচুপির বিষয় স্পষ্ট, সেখানে নিয়ন্ত্রণহীন কাঁচাবাজারের কি দুরবস্থা, সেটি নতুন করে বলার নেই। এদিকে ওজন ও কারচুপি রোধে জাতীয় মান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) তাদের নিজস্ব…

Read More

আটপৌরে শশব্যস্ততায় শয়তানের চাকা

রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে আছেন, শাঁ করে গাঘেঁষে বিদ্যুত্গতিতে বেরিয়ে গেল একটি রিকশা, চলে বিদ্যুতেই। প্রতিদিন এমনই ঘটনা অহরহ ঘটছেই। রাজধানী ঢাকার বাসিন্দাদের কাছে এখন এক যন্ত্রণা ও আতঙ্কের নাম এ ব্যাটারিচালিত রিকশা। পূর্বতন কাঠামোয় কেবল বৈদ্যুতিক মোটর ও ব্যাটারি সংযুক্তির মাধ্যমে সর্বোচ্চ গতি তোলার চেষ্টা থাকায় যানটির ভারসাম্য ঠিক রাখতে চালকদের বেগ পেতে হয়। বিশেষ করে ব্রেক, বডি থেকে শুরু করে গতির সঙ্গে সমন্বয় ঘটানো হয়ে পড়ে একটি বড় চ্যালেঞ্জ। একজন যাত্রী সেদিন কৌতুকের ছলে বলেই বসলেন, একটা চার বছরের বাচ্চাকে ৪০ বছরের মানুষের পাঞ্জাবি পরালে সে যেভাবে হাঁটবে, এ…

Read More